বগুড়ায় ছাত্রলীগের নামধারী বখাটেদের উৎপাতে স্কুলগামী ছাত্রীরা আতংকে

বগুড়ার বিভিন্ন স্কুলের সামনে কলেজ পড়ুয়া ছাত্র , এবং ছাত্রলীগের নামধারী কিছু অ-ছাত্র বখাটেদের আতংকে স্কুলগামী ছাত্রীরা স্কুলে যেতে ভয় পাচ্ছে।
সম্প্রতি বগুড়ার ইয়াকুবিয়া স্কুলের এক ছাত্রী আমাদের দৈনিক সকালবেলা পত্রিকার ফেসবুক পেজ এ এমন অভিযোগ করেছে । অভিযোগ কারী ছাত্রী র দাবি তার স্কুল , কোচিং সব জায়গায় রিদয় খান নামের একজন বখাটের উৎপাতে ৯ম, ১০ম শ্রেণীর ছাত্রীরা শুধু নয় নয়- ৮ম শ্রেণীর ছাত্রীরা আতংকে দিন কাটায় । কেউ কেউ বোরকা পড়ছে , কেউ বা হিজাব পড়ছে তবুও বখাটেদের হাত থেকে রেহায় পাচ্ছে না। বখাটে রা ছাত্রীদের কোচিং সেন্টারগুলোতে ও আড্ডা দিচ্ছে । প্রগ্রেস কোচিং সেন্টার মোড়, শহিদ কাডেট কোচিং মোড় , ইয়াকুবিয়া স্কুল মোড়ে বখাটেদের প্রধান ছাত্রলীগ নামধারী রিদয় খানের এবং তার সহচরদের আনাগোনা । নাম প্রকাশে অনিচছুক এক ছাত্রীর অভিভাবকদের কয়েকজন সকালবেলা প্রতিবেদক কে জানান যে, রিদয় খানের হাতে এবং শরিরের বিভিন্ন অংশের টাটু দেখে আমাদের মেয়েরা ভয় পায়।রিদয়ের একাংশ চুল লাল করে রাস্তায় যখন তখন যে কোন মেয়ে কে দাড় করিয়ে কথা বলা অভিভাবকদের জন্যে মানসিক আশান্তির কারন হয়ে গেছে । রিদয়ের বাবার বি আর টি সি মার্কেটে দোকান আছে । প্রভাবশালীদের সাথে রিদয়ের বাবার সম্পর্ক থাকার কারনে কেউ রিদয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ এরপর সাহস পায় না।অভিযোগকারী ছাত্রীর সহপাঠীরা রাগ আর দুঃখ প্রকাশ করে বলে , আমরা কি আফগানিস্তানে থাকি যে স্কুলে আসতে হলে আমাদের ছদ্মবেশে আসতে হবে।আমরা ১লা বৈশাখের অনুমতি পায়নি অভিভাবকদের কাছে থেকে শুধুমাত্র এই একজন বখাটের কারনে । নির্দিষ্ট কোন মেয়ে তার টার্গেট নয়। যাকে পাচ্ছে তাকেই পেছন থেকে ডাকে।হাত কেটে শোডাউন করে মেয়েদের দুর্বল করার জন্যে । এমতাবস্থায় রিদয় খানের বাবাসহ রিদয় খানের সহচরদের সকলের হাত হতে পরিত্রানের জন্যে প্রশাসনিক সহায়তা চেয়েছে স্কুলস্কগামী কোমলমতি ছাত্রীরা।

ছড়িয়ে দিনঃ