প্রথম টার্গেট দক্ষিণ আফ্রিকা

বৃহস্পতিবার লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অংশগ্রহণকারী ১০ দলের অধিনায়কদের আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলন। আগের দিন দেশ থেকে উড়ে গিয়ে সংবাদ সম্মেলনে যোগ দেন বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। অধিনায়কদের হাসি-ঠাট্টা, ফটোসেশন এবং প্রশ্নোত্তর পর্বের মধ্য দিয়ে শেষ হয় এই সংবাদ সম্মেলন। অংশগ্রহণকারী সবকটি দলের অধিনায়কই নিজ নিজ দলের লক্ষ্য এবং সম্ভাবনা নিয়ে কথা বলেন। অনুষ্ঠানে টাইগার অধিনায়ক মাশরাফি দল নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, এবারের আসরে যেকোনো দলকে হারিয়ে দেওয়ার ক্ষমতা আছে বাংলাদেশের!

আয়ারল্যান্ডে সদ্য সমাপ্ত ত্রিদেশীয় সিরিজে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ। ফাইনালে দুর্দান্ত ক্রিকেট খেলে হারিয়ে দিয়েছে জেসন হোল্ডারের ওয়েস্ট ইন্ডিজকে। সিনিয়র ক্রিকেটারদের ছাড়াও দলে আছেন দুর্দান্ত কিছু তরুণ খেলোয়াড়। অভিজ্ঞতা আর তারুণ্যের সমন্বয়ে গঠিত দলটিকে নিয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে মাশরাফি বলেন, ‘আমাদের দলে দুর্দান্ত কিছু ছেলে আছে, যারা সত্যিকার অর্থেই রোমাঞ্চকর ক্রিকেট খেলছে।

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত গত আসরের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠে বাংলাদেশ। সেই আসরের পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিস্ময়কর উত্থান হয় বাংলাদেশ দলের। বড় দলগুলোর বিপক্ষে সিরিজ জেতার পাশাপাশি ২০১৭ সালে চ্যাম্পিয়নস ট্রফির সেমিফাইনালে খেলে বাংলাদেশ। তাই প্রত্যাশার পারদটা এবার আরো উঁচুতে উঠে গেছে টাইগারভক্তদের। এই বিপুল প্রত্যাশার বাস্তবায়ন কঠিন হলেও অসম্ভব নয় জানিয়ে মাশরাফি বলেন, ‘ক্রিকেট এমনই একটি খেলা, যেখানে আপনি যেকোনো দিন যে কাউকে হারাতে পারেন। আমরা সে ক্ষেত্রে আশা করব শুরুটা যেন ভালো কিছু হয়। আমরা আত্মবিশ্বাসী, তবে সবকিছুই ভালো শুরুর ওপর নির্ভর করছে।

আগামী ২ জুন শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে এবারের বিশ্বকাপ মিশন শুরু করবে বাংলাদেশ দল। প্রোটিয়াদের বিপক্ষে সেই ম্যাচ থেকেই বিশ্বকাপে শুভসূচনা করতে চান মাশরাফি। তাই দক্ষিণ আফ্রিকা ম্যাচ নিয়ে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘জুনের ২ তারিখে ফাফ ডু প্লেসির দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে আমাদের ভালো খেলতে হবে। আশা করি, আমরা ভালো শুরু করতে পারব।

এবার নিয়ে টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিতে যাচ্ছেন মাশরাফি। ক্যারিয়ারের চতুর্থ বিশ্বকাপ খেলতে যাওয়া মাশরাফিকে গর্বিত করছে দেশকে টানা দুই বিশ্বকাপে নেতৃত্ব দেওয়ার বিষয়টি। তাই সংবাদ সম্মেলনে উচ্ছ্বসিত বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ‘সত্যিকার অর্থেই গর্ববোধ করি। বিশ্বকাপ খুব কাছেই চলে এসেছে। আমরা একটি দল হিসেবে খুবই রোমাঞ্চিত।