ঠাকুরগাঁওয়ে বিজিবি’র গুলিতে ৪ জনের মৃত্যু

সিপিবি’র ক্ষোভ
দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি

১২ ফেব্রুয়ারি ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বহরমপুর গ্রামে বিজিবি’র গুলিতে ২ জন শিক্ষার্থীসহ ৪ জনের হত্যাকা- ও নারী-পুরুষ, শিশু-বৃদ্ধসহ ১৬ জন গ্রামবাসী আহত হওয়ার ঘটনায় বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ আলম তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন।
নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, গ্রামবাসী অভিযোগ করেছেন বৈধ কাগজ থাকা সত্ত্বেও বিজিবি’র সদস্যরা ভারতীয় গরু আখ্যায়িত করে প্রায় ক্যাম্পে নিয়ে যায়। অতিষ্ট গ্রামবাসী ১১ ফেব্রুয়ারি, সোমবার বিজিবির অত্যাচারের বিরুদ্ধে জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ উত্থাপন করার পরদিন গতকাল ১২ ফেব্রুয়ারি গরু চোরাকারবারী অভিযোগ দিয়ে গ্রামবাসীর উপর নির্বিচার গুলিবর্ষণ করে। এতে নারী-পুরুষ, শিশু-বৃদ্ধ নির্বিশেষে গ্রামবাসী নিহত-আহত হয়।
নেতৃবৃন্দ বলেন, এ ধরনের ঘটনা সীমান্তরক্ষা বাহিনীর ঔদ্ধত্য প্রকাশিত হয়েছে। নেতৃবৃন্দ বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করে দোষীদের চিহ্নিত করে শাস্তির দাবি করেন। নেতৃবৃন্দ নিহত, আহতদের পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান।

ছড়িয়ে দিনঃ