একজন পরীক্ষার্থীর আবেদনে ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত, শিক্ষাবোর্ডের ইতিহাসে এটিই প্রথম

আব্দুর রহিম রানা,  যশোরঃ
যশোর শিক্ষাবোর্ডের ইতিহাসে প্রথমবারের মত রাতের বেলা এসএসসি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। কুষ্টিয়ার কুমারখালি কেন্দ্রে একজন শিক্ষার্থীর এক বিশেষ আবেদনের প্রেক্ষিতে রাতের বেলা পরীক্ষা নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
যশোর শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র বৃহস্পতিবার বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে,  সারাদেশে ২রা ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাচ্ছে চলতি বছরের এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা। দেশের প্রত্যেকটি শিক্ষাবোর্ড নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় এ পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতি নিয়েছে। এই প্রস্তুতির মধ্যে ব্যতিক্রমী সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে যশোর শিক্ষাবোর্ড।
এবার যশোর শিক্ষাবোর্ডের অধীন কুষ্টিয়ার কুমারখালি পরীক্ষা কেন্দ্রে রাতে পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। এ সংক্রান্ত পত্র চূড়ান্ত করা হয়েছে বুধবার বিকেলে এবং যশোর শিক্ষাবোর্ডের ওয়েবসাইডে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র স্বাক্ষরিত উক্ত নোটিশটি পিডিএফ আকারে দেওয়া হয়েছে। যার স্মারক নং- মাধ্য/পনি-৮৬।
যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা বিভাগে খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, বোর্ডের অধীন ১০ জেলায় এবার পরীক্ষার্থী রয়েছে ১ লাখ ৮৪ হাজার ২শ’ ৯০। এই পরীক্ষার্থীর মধ্যে একজন রয়েছে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট সম্প্রদায়ের। এই সম্প্রদায়ের ধর্মীয় গ্রন্থ পবিত্র বাইবেলে বিধি-নিষেধ রয়েছে শনিবার দিনের বেলায়  কোনো কিছু না লেখার। পবিত্র বাইবেল অনুসারে সৃষ্টিকর্তা নিজেই এইদিনকে পবিত্র বিশ্রামবার হিসেবে ঘোষণা করেছেন এবং এই দিনে কোন কাজ না করার আদেশ দিয়েছেন।
ফলে শনিবারের পরীক্ষা তার পক্ষে দেয়া সম্ভব হচ্ছে না। এ কারণে কুষ্টিয়ার কুমারখালি কেন্দ্রের রিকি হালদার নামে ওই পরীক্ষার্থী শিক্ষাবোর্ড বরাবর আবেদন করেছে শনিবারের পরীক্ষাগুলো দিনের পরিবর্তে রাতে গ্রহণের জন্যে। শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ ধর্মীয় বিধি-বিধানের বিষয়টি আমলে নিয়ে রিকি হালদারের আবেদনটি আমলে নিয়েছে।
এসএসসি পরীক্ষায় রিকি হালদারের রোল নম্বর ১১১৩৫২ ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর ১৫১৩৬০৪৫২২। রাতে রিকি হালদারের পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়টি বুধবারই চূড়ান্ত করেছে যশোর শিক্ষাবোর্ড।
শুধুমাত্র কুষ্টিয়ার কুমারখালি কেন্দ্রের রিকি হালদার নামে ঐ এসএসসি পরীক্ষার্থীর ২ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বাংলা পরীক্ষা সকাল ১০ টার পরিবর্তে সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। একইভাবে ৯ ফেব্রুয়ারি গণিত, ১৬ ফেব্রুয়ারি রসায়ন ও ২৩ ফেব্রুয়ারি উচ্চতর গণিত পরীক্ষা যথারীতি সন্ধ্যা ৬ টা থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত গ্রহণ করা হবে।
খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, রিকি হালদার কুষ্টিয়ার কুমারখালি উপজেলার পারফেক্ট ইংলিশ ভার্সন স্কুলের পরীক্ষার্থী। কুমারখালি কেন্দ্রের কেন্দ্র সচিব ফিরোজ মো. বাশার তার রাতে পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তিনি পারফেক্ট ইংলিশ ভার্সন স্কুলের অধ্যক্ষের সাথে যোগাযোগের ব্যাপারে কোনো সহযোগিতা করতে পারেননি। রাতে একজন পরীক্ষার্থীর পরীক্ষা গ্রহণের জন্যে সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রের সকলকেই শেষ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এই অপেক্ষার তালিকায় যাদের থাকতেই হবে যাদের মধ্যে কেন্দ্র সচিব, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, হলসুপার, সহকারী হলসুপার, কক্ষ পরিদর্শক ও এমএলএসএস অন্যতম।
যশোর শিক্ষাবোর্ড প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ১৯৬৩ সালে। এরমধ্যে পার হয়েছে ৫৫ বছর। এতদিনে এসএসসিতে রাতে পরীক্ষা গ্রহণের ঘটনা এটিই প্রথম। এর আগে কোনো দিন কোনো পরীক্ষার্থীর রাতে পরীক্ষা গ্রহণ করা হয়নি। এর আগে ২০১৮ সালের জেএসসিতে সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট সম্প্রদায়ের পরীক্ষার্থী ছিল বলে জানিয়েছে যশোর শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষা বিভাগ। তার পরীক্ষাও রাতে গ্রহণ করা হয়েছিল।
রাতে পরীক্ষা গ্রহণের বিষয়ে শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ কিছু বিধি-বিধান জারি করেছে। তার মধ্যে অন্যতম হলো পরীক্ষার্থীকে অবশ্যই সকাল ১০ টার মধ্যে পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করতে হবে। এরপর অপেক্ষা করতে হবে বোর্ড নির্ধারিত সময় পর্যন্ত। এ সময়ের মধ্যে কোনোভাবেই পরীক্ষা কক্ষের বাইরে বের হওয়া যাবে না। যোগাযোগ করা যাবে না কারোর সাথে।
এ ব্যাপারে পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্রের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, শিক্ষাবোর্ডের ইতিহাসে এসএসসিতে রাতে পরীক্ষা গ্রহণ এটিই প্রথম। ধর্মীয় বিধি-নিষেধের কারণে রিকি হালদার নামে এক পরীক্ষার্থীর আবেদন গ্রহণ করা হয়েছে। তার আবেদন অনুযায়ী শনিবারের পরীক্ষাগুলো রাতে গ্রহণ করা হবে।
ছড়িয়ে দিনঃ