আমি পেটের ক্ষুধায় রাজনীতি করি না : আলী আজম মুকুল

অনলাইন ডেস্কঃ
ভোলা-২ আসনের জনপ্রিয় সংসদ সদস্য আলী আজম মুকুল তার নিজ ফেসবুক আইডির একটি স্ট্যাটাস নিয়ে তার নির্বাচনী এলাকায় ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। তাই ওই স্ট্যাটাসটি হুবহুব তুলে ধরা হলো–

আমি পেটের ক্ষুধায় রাজনীতি করি না,
আমি রাজনীতি করি মনের ক্ষুধায়,
আমি রাজনীতি করি বোরহানউদ্দিন-দৌলতখানের গনমানুষের ভাগ্য উন্নয়নে।
আমি আমার বিবেক, নীতি, আদর্শ ও আপনাদের’কে সাথে নিয়ে এগিয়ে নিতে চাই দ্বীপজেলা ভোলা’কে।
সকল দুর্নীতি, অন্যায়, অবিচারকারীদের কঠোর হাতে দমন, মাদক নির্মুল, নিরাপত্তার চাদরে সকল’কে ঢেকে দিব ইনশাআল্লাহ..

আলী আজম মুকুল
সংসদ সদস্য
১১৬, ভোলা-২।

তার নির্বাচনী এলাকার জনগন ওই ফেসবুক স্ট্যাটাসটি যতার্থ লিখেছেন বলে মনে করে এই সাংসদের প্রশংসা করে বহু মানুষ কমেন্টস করেন।

Gias Uddin নামের ফেসবুক আইডি থেকে একজন লিখেন —

নির অহংন্কার গন মানুষের নেতা তাকেই বলে যার মনে সবসময় চিন্তা থাকে Allah help thouse Who help themselves! আল্লাহ্ আপনার সহায় হউন!
Zahidul Hasan নামের আরেক ভক্ত লিখেন–
ভাই…..আপনাকে অনেক ধন্যবাদ।সবাই যদি আপনার মত এই উদ্দেশ্য নিয়ে রাজনীতি করতো তাহলে বাংলাদেশের মানুষ গুলোর আর কোন কষ্টের দিন থাকতো না।আল্লাহ আপনাকে সাহায্য করুক।

Tuhin Khandokar নামের ফেসবুক আইডি থেকে লিখেন–
শত কোটি সালাম আপনাকে, সাধারন জনগনের শেষ আশ্রয় স্থল হয়ে রাত দিন নিরলস কাজ করছেন। আপনার মত নির্লোভ, নিরঅহংকারী একজন সংসদ সদস্য বাংলাদেশের প্রতিটি আসনে খুব প্রয়োজন।

Mizan Uddin নামের আরেক ভক্ত লিখেন–
নেতা আমরা আপনাকে ভোট দিতে পারবো না,কারন আমাদের বাড়ি তজুমদ্দিন তবে যতদিন বাচবো ততদিন আপনার পাশে থাকবো,আল্লাহর কাছে দোয়া করি যেনো আপনার মতো নেতার পাশে থাকতে পারি,থাকবো।আজ থেকে আমার দুই জন নেতা, যাদের পাশে থাকে মরতে পারি,একজন নূরনবী চৌধরী শাওন ভাই,অন্যজন হলেন আপনি।

Mahbub-Ul Alam Chowdhury নামের ফেসবুক আইডি থেকে লিখেন–
হে প্রিয় সাংসদ …… হে প্রিয় নেতা …… আপনার প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান নিয়েই বলছি … রাজনীতিবীদ গন রাজনীতি পেটের ক্ষুধায় করে না … করে মনের ক্ষুধায় … আর তা সারথ্যকতা খুজে নিজ কর্মের মাজে … অর্জন করে সম্মান … তাই আপনি যে আশার বানী শুনালের তা আমাদের সকলের প্রানের দাবী … আর এই দাবী পূরণে আপনি হবের সকলের প্রানের নেতা … হে নেতা … তোমায় সালাম …।

এভাবে শত শত মানুষ তার কাজের ও লিখার ভূয়সি প্রশংসা করেন।